এই পেজটতে আপনি আমি বিভিন্ন বিষয়ে মতামত পোস্ট করত্যে প্যারব।

পুরুলিয়া জেলার জন্যেই এই ওয়েবসাইট বানান হৈঞ্ছে। পেজটতে পড়াশুনা, আই-উপার্জন, চাষবাস, কি ভাবে সুস্থ থাকা যায়, আমাদের আশেপাশে কোন প্রসিদ্ধ স্থানের তথ্য, শিশুর যত্ন, সামাজ সেবা ইত্যাদি নানা বিষয়ে আপনি-আমি নিজের মতামত প্রকাশ করত্যে পারি।

আপনি কুনু ল্যেখতে চাইলে জেকন Leave a comment লিঙ্কে বা কুনু বিষয়ে পোস্টের লিঙ্কে ক্লিক করুন তাহল্যে Leave a Reply হেডিং দিয়া অংশ পাবেন যেটতে Comment এর ঘরটতে যে বিষয়ে আপনি ল্যেখতে চান তার একটি হেডিং দিঁয়ে আপনার বক্তব্য লেখুন । এডমিন ভেরিফাই কর‍্যে আপনার বক্তব্য পোস্ট কর‍্যে দিবেক।

বিভিন্ন বিষয়ে অন্যরা যত সংখ্যক আইডিয়া বা মতামত দিঁয়ে থ্যাকলে তার সংখ্যক কমেন্ট পোস্টের নিচে থাকে । সেইখ্যানে আপনি ক্লিক করে সেইগালা পোড়ত্যে পারেন এবং রিপ্লাই কমেন্ট কোরত্যে পারেন।

এইখ্যানে আপনি নিঃসঙ্কোচ মন্তব্য করত্যে পারেন , লিঙ্কট ফেসবুক ইউ টিউবে শেয়ার করত্যে পারেন।

ওয়েব সাইটের হোম পেজে জাত্যে http://mypapers.in/ এ ক্লিক করুন

পশ্চিম বংগ ভোট

পোলিং অফিসার দের কাজ। ভোটের সময় বিভিন্ন পরিস্থিতিতে নানা ফর্ম ফিলাপ করে ভোট নেওয়ার কথা ট্রেনিং এর সময় বলা হয় কিন্তু বুথে এজেন্টদের কোন অব্জেক্সন না থাকলে নরম্যাল ভাবে ভোট করিয়ে নিতে হয়।

প্রথম পোলিং অফিসার ভোটের সময় ভোটারের আনা ভোটার স্লিপ দেখে সিরিয়াল নাম্বারটি মার্কড কপি অফ ইলেকট্রল রোলে খুজবেন এবং এজেন্টদের কে ভোটারের নাম ও সিরিয়াল নাম্বার টা বলে দিবেন। পুরুষ ভোটার হলে টিক দিবেন আর স্ত্রী হলে নামের নিচে আন্ডারলাইন করবেন। এরপর পুরুষ -মহিলা ট্যালি শিটে পুরুষ মহিলা অনুযায়ী টিক সেকেন্ড পোলিং অফিসার এর কাছে পাথিয়ে দিন।এছাড়া নন এপিক এর একটা হিসাব রাখতে হয় যেটাতে কারা ভোটার কার্ড ছাড়া অন্য কোন ডকুমেন্ট নিয়ে ভোট দিয়েছেন।

সেকেন্ড পোলিং অফিসার এর কাজ ভোটার স্লিপ ইসু করা, হাতের তর্জনী তে কালি দেওয়া। এএসডি, ইডিশি, প্রক্সি ভোট, টেস্ট ভোট, ডু নট ওয়ান্ট টু ভোট ইত্যাদি কন্ডিশন দেখে ফর্ম 17-A বা ভোটার রেজিস্ট্রার ফিলাপ করা।

থার্ড পোলিং অফিসার এর কাজ ইসু করা ভোটার স্লিপ কালেক্ট করা ও ব্যলট ইসু করা ভোটার কে ভোট দিতে বলা।

Paytm Phonepe Googlapay কি ও কিভাবে ইন্সটল ও ব্যবহার করতে হয় জানতে ক্লিক করুন

Paytm:- পেটিএম হল মোবাইলের একটি অ্যাপ্লিকেশান যেট দিয়ে সঙ্গেসঙ্গে কুন এক্সট্রা চার্জ না দিয়ে টাকা অন্য কারো ব্যঙ্ক বা পেটিএম অ্যাকাউন্ট এ ট্রান্সফার করা যায়। তবে পেটিএম ওয়ালেট-এ এরজন্যে টাকা প্রথমে অ্যাড করতে হবেক তা ডেবিট কার্ড হোক না নেট ব্যাঙ্কিং । বিপরীত ভাবে অন্য কেউ পে করতে চাইলে কিউ আর কোড স্ক্যান করে বা আপনার পেটিএম এ রেজিস্টার করা মোবাইল নাম্বার দিয়ে ট্রান্সফার করতে পারে।

আপনাকে পেটিএম ব্যবহার করত্যে হল্যে দরকার আপনার একটা পারমানেন্ট মোবাইল নাম্বার ঠিক করা যেটাতে আপনি পেটিএম ব্যবহার করবেন। গুগুল প্লে স্টোর থাকে আপনি পেটিএম অ্যাপট ইন্সটল করুন আপনার মোবাইলে।

ইন্সটল করার পর খুলুন ও নিচে চারটা অপশন পাবেন। হোম, অয়ালেট, অ্যাকাউন্ট, আপডেটস। পেটিএম অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে অ্যাকাউন্ট অপশন এ ক্লিক করুন

এইবারে সাইন আপ অপশন ক্লিক করুন।

আপনার মোবাইল নম্বরট দিন ও একটি নিজের মত পাসয়ার্ড দিন। সাইন উপ এ কিল্ক করুন।

নিয়ে একটি ওয়ান টাইম পাস ওয়ার্ড বা ও টি পি আপনার দিয়া মবাইলে আসবেক সেট দিন ও নিজের নামট দিন। ডেট অফ বার্থ নাও দিতে পারেন।

নিয়ে কনফার্ম ক্লিক করুন। আপনার অ্যাকাউন্ট তৈরি ।

এইবার লগ ইন করতে পারেন আপনার দিয়া মোবাইল নাম্বার ও পাস ওয়ার্ড দিয়ে।

যেহেতু আপনার প্রথমে পেটিএম ওয়ালেট ব্যালান্স শূন্য তাই নিচে ওয়ালেট অপশন সিলেক্ট করুন ও অ্যাড মানি সিলেক্ট করুন।

এইবার ডেবিট কার্ড হোক বা নেট ব্যাঙ্কিং আপনি টাকা পেটিএম অ্যাকাউন্ট এ যোগ করুন।

আপনি কারও কাচ থেকে পেমেন্ট লিতে হোলে আপনার পেটিএম নাম্বার বা কিউ আর কোড শেয়ার করুন।

পেটিএম ট্যাক্সি এবং অটো, পেট্রোল পাম্প, মুদি দোকান, রেস্তোঁরা, কফি শপ, মাল্টিপ্লেক্স, পার্কিং, ফার্মাসি, হাসপাতাল এবং কিরানা শপগুলির মধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গায় নির্বিঘ্নে অর্থ প্রদানে ব্যবহৃত হতে পারে।

ওয়েব সাইটের হোম পেজে যাত্যে http://mypapers.in/ এ ক্লিক করুন